বিশ্বের সবচেয়ে বড় সক্রিয় আগ্নেয়গিরি মনালোয়ায় শুরু অগ্ন্যুৎপাত

বিশ্বের সবচেয়ে বড় সক্রিয় আগ্নেয়গিরি মনালোয়ায় শুরু অগ্ন্যুৎপাত
সংগৃহীত ছবি

বিশ্বের সবচেয়ে বড় সক্রিয় আগ্নেয়গিরি মনালোয়ায় শুরু হয়েছে অগ্ন্যুৎপাত। হাওয়াইয়ের ক্যালডেরা পর্বতমালার অংশ এই মনালোয়া আগ্নেয়গিরিটি। যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি প্রতিষ্ঠান ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা গেছে।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্থানীয় সময় গতকাল রোববার এই অগ্ন্যুৎপাত শুরু হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা এক বিজ্ঞপ্তিতে বলেছে, ‘এখনো লাভা প্রবাহ গিরির চূড়ায় রয়েছে। নিচুতে থাকা জনবসতি এখনো ঝুঁকিমুক্ত নয়।’ তবে স্থানীয় অধিবাসীদের সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে থাকতে বলা হয়েছে।

আগ্নেয়গিরি অগ্ন্যুৎপাতের পূর্ববর্তী রেকর্ডের ওপর ভিত্তি করে ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থার বিজ্ঞপ্তিতে সতর্ক করে বলা হয়েছে, এই আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাত প্রাথমিক পর্যায়ে খুবই তীব্র ও গতিশীল হতে পারে এবং লাভা প্রবাহের অবস্থান এবং দিক দ্রুত পরিবর্তন করতে পারে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, হাওয়াইয়ের আগ্নেয়গিরি পর্যবেক্ষণ সংস্থা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব স্থানীয় পরিবেশের বায়ুর উপাদান পরীক্ষা করবে সম্ভাব্য বিপদ নিরূপণ করতে চেষ্টা করবে যাতে অগ্ন্যুৎপাতকে আরও ভালোভাবে উপলব্ধি করা সম্ভব হয়। ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থার মতে, অগ্ন্যুৎপাত শুরুর পর দুই ঘণ্টায় এই অঞ্চলে ২ দশমিক ৫ মাত্রার এক ডজনেরও বেশি ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মাত্রার ভূমিকম্পটি ছিল ৪ দশমিক ২ রিখটার স্কেল মাত্রার।

মনালোয়া আগ্নেয়গিরিটি হাওয়াইয়ের বিগ আইল্যান্ডের অর্ধেকেরও বেশি জায়গা দখল করে রেখেছে। আগ্নেয়গিরির চূড়াটি প্রশান্ত মহাসাগর পৃষ্ঠ থেকে ১৩ হাজার ৬৭৯ ফুট উঁচু। সর্বশেষ, ১৯৮৪ সালের মার্চ এবং এপ্রিলে অগ্ন্যুৎপাত হয়েছিল এই আগ্নেয়গিরিতে। সে সময় স্থানীয় হিলো শহরের ৮ কিলোমিটার অভ্যন্তর পর্যন্ত লাভা চলে গিয়েছিল।

সংবাদ সূত্রঃ রয়টার্স