চায়ের সঙ্গে ধূমপান করেন? যা হতে পারে

সংগৃহীত ছবি

ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এর পরেও অনেক লোক আরাম ও স্বাচ্ছন্দ্যে ধূমপান করে থাকে । তিন বেলা চা না খেলে অনেকেই বাঁচতে পারে না।কেউ কেউ তো আবার চা এবং সিগারেট একসঙ্গে খেয়ে থাকেন।

বিশেষ করে তরুণরা এই পদ্ধতিতে একটা অনুভূতি অনুভব করে।

গবেষণা অবশ্য ইঙ্গিত দেয় যে, এই ধরনের অভ্যাস বাড়াতে পারে ক্যান্সারের ঝুঁকি। চা আর সিগারেট একসঙ্গে বা বিরতি না নিয়ে খাওয়া আপনার স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়িয়ে তুলতে পারে অনেকটাই।

গবেষণা প্রেক্ষিতে বলা যায়, যে ব্যক্তি নিয়মিত ধূমপান কিংবা মদ্যপান করে থাকেন তাদের ক্ষেত্রে গরম চা পানের অভ্যাস খাদ্যনালির ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়িয়ে দিতে পারে। গবেষণায় ৩০ বছর থেকে ৭৯ বছর বয়সী সাড়ে চার লাখ ব্যক্তির ধূমপান, মদ্যপান এবং চা পান অভ্যাসের ব্যাপারে তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছিল। গবেষণার শুরুতে তাদের কারোরই ক্যান্সার ছিল না। পরবর্তী ৯ বছর ধরে এই সাড়ে চার লাখ মানুষের তথ্য সংগ্রহ করা শুরু করলে গবেষকরা দেখেন এক হাজার ৭৩১ জন খাদ্যনালির ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন।

অপরদিকে দেখা যায়, যাদের অতিরিক্ত চা পান, মদ্যপান এবং ধূমপান করার অভ্যাস নেই তাদের ক্যান্সারের ঝুঁকি এসবে আসক্ত মানুষের ক্যান্সারের ঝুঁকির পাঁচ গুণ কম থাকে। তামাক এবং অ্যালকোহল দুটিই ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট। এই অভ্যাসগুলোর সঙ্গে যদি আবার গরম চা পান করার প্রবণতা আপনার থাকে, তাহলে সমস্যা আরো জটিল রূপ নিতে পারে বলে জানান বিশেষজ্ঞরা।