গণশুনানি ছাড়াই সরকার বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম বাড়াতে পারবে

গণশুনানি ছাড়াই সরকার বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম বাড়াতে পারবে
মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম - সংগৃহীত ছবি

বিশেষ পরিস্থিতিতে গণশুনানি ছাড়াই বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম সমন্বয় করার বিধান রেখে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) অধ্যাদেশ ২০২২ সংশোধনের চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে।

আজ সোমবার (২৮ নভেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। পরে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বৈঠকের সিদ্ধান্তের কথা সাংবাদিকদের জানান।

জানা যায়, আইনের সংশোধন প্রস্তাব জাতীয় সংসদে পাস হলে বিশেষ পরিস্থিতিতে জ্বালানির মূল্য সমন্বয়ের সিদ্ধান্ত সরকার নিজেই নিতে পারবে। অর্থাৎ, সরকার নিজেই জ্বালানির দাম বাড়াতে-কমাতে পারবে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, বর্তমানে জ্বালানির দাম নির্ধারণে বিইআরসিকে গণশুনানি করতে হয়। এতে ৯০ দিন সময় লাগে। বিশেষ পরিস্থিতিতে সরকারও যেন তা নির্ধারণ করতে পারে, এজন্যই প্রস্তাবিত এ সংশোধনী মন্ত্রিসভা অনুমোদন করে।

তিনি আরো জানান, বেসরকারিভাবে জ্বালানি তেল, এলপিজি ও এলএনজি আমদানি করা যাবে। আমদানি করা জ্বালানি তারা যেন বিক্রিও করতে পারে এ নিয়ে বৈঠকে আলাদাভাবে আলোচনা হয়েছে। আমদানিকারকরা এসব জ্বালানি চাইলে বিপিসিতে-ও বিক্রিও করতে পারবে। এ বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি তবে তা মন্ত্রিসভায় আলোচনা হয়েছে।

খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, এটা করা গেলে সরকারের ওপর চাপ কমবে। এতে দামে প্রভাব পড়বে না। সরকার মনিটরিং করবে। দাম তখন কম পড়বে বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।