মাথায় রড ঢুকে নিহত সেই শিশুটির নাম জানা গেছে

মাথায় রড ঢুকে নিহত সেই শিশুটির নাম জানা গেছে
প্রতীকী ছবি

মহাখালীর উড়াল সড়ক থেকে রড পড়ে মাথায় ঢুকে নিহত হওয়া শিশুটির নাম জানা গেছে। তার নাম সুমন, বয়স হতে পারে আনুমানিক ১২ থেকে ১৩ বছর।

সোমবার (২৯ মে) রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেন ঢাকা রেলওয়ে থানা (কমলাপুর) উপ-পরিদর্শক (এসআই) সেকান্দার আলী।

তিনি বলেন, ঘটনাস্থলে গিয়ে আশপাশের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে শিশুটির নাম সুমন বলে জানা গেছে। তা ছাড়া সে যাদের সঙ্গে ঘোরাফেরা করত তাদের সঙ্গে কথা বলেও শিশুটির নাম সুমন বলে জানা গেছে। কিন্তু সে কোথায় থাকতো, তার বাড়ি কোথায় সে সম্পর্কে কিছুই জানা যায়নি।

সোমবার (২৯ মে) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মহাখালীতে নির্মাণাধীন উড়াল সড়ক (এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে) থেকে পড়া একটি লোহার রড় সুমনের মাথায় পড়ে। রডটি তার মাথার এফোঁড়-ওফোঁড় হয়ে যায়। মারাত্মক আহত অবস্থায় পথচারীরা সুমনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

ঘটনার পর হাসান নামে একজনকে আটক করে বনানী থানা পুলিশ। তাকে রেলওয়ে থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে এ ব্যাপারে ঢাকা রেলওয়ে থানায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এসব তথ্য জানান বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান।

এর আগে আব্দুল কাদির ইমন নামে এক পথচারী দুর্ঘটনার ব্যাপারে জানান, সকালে ওই রাস্তা দিয়ে যাওয়ার পথে লোকজনের জটলা দেখেন তিনি। কাছে গিয়ে দেখেন সুমন রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে দ্রুত সুমনে মহাখালীর একটি হাসপাতালে নেন ইমন। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে ঢামেক হাসপাতালে পাঠান হাসপাতালের চিকিৎসক।

তিনি আরও বলেন, ঢামেকে চিকিৎসা নেওয়া অবস্থায় সুমনের মৃত্যু হয়েছে। দেখে পথশিশু মনে হয়েছে। রডটি ওপর থেকে পড়ে তার মাথার একদিক দিয়ে ঢুকে অন্যদিক দিয়ে বেরিয়ে গেছে।

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া জানিয়েছিলেন, জরুরি বিভাগের ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেন্টারে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সুমন মারা গেছে।